bangla jocks

Bangla Jocks Collection 6

Bangla Jocks 6: বাংলা জেকস ছয় (কৌতুক)

(৫১)
অথিতি :- আজ তিথির হাতের চা বেশ ভালো হয়েছে।
তিথি:- হ্যাঁ বাবু, বেড়ালে যদি দুধে মুখ না দিত তাহলে চায়ের স্বাদ আরও বাড়ত।
অতিথি :- অ্যাঁ !

(৫২)
ক্রেতা :- ডিমের দাম কত?
বিক্রেতা :- দশ টাকা হালি।
ক্রেতা :- কেন? এখনই তো বাজার এ বেশি ডিম পাওয়া যায়।
বিক্রেতা :- কিন্তু আজকাল মনে হয় মুরগিগুলো ফ্যামিলি প্লালিং করছে।

(৫৩)
এক বৃদ্ধ রোগীকে ডাক্তার ওষুধপত্র দিয়ে বললেন-বড়ির খাবার সবসময় ঢাকা রাখবেন।
রোগী উত্তর দিলো :- ঢাকা কেন স্যার কুমিল্লা রাখলে চলে না।

(৫৪)
তিন বন্ধু নদীর ধারে বসে কবিতা রচনায় রত।
১ম বন্ধু লিখছে :- মেঘ গুরু গুরু।
২য় বন্ধু লিখছে :- বাতাস উরু উরু
৩য় বন্ধু ছিলো হাবাগোবা তাই সে লিখছে :- নদীর ধারে বসে আছি আমরা তিন গরু।

(৫৫)
মা :- কলেজ থেকে আসতে দেরি হল কেন?
মেয়ে :- এক যুবক আমার পিছু নিয়েছিল।
মা :- তাই বলে দুই ঘন্টা লাগবে আসতে।
মেয়ে :- বারে! যুবকটি খুব আস্তে আস্তে হাঁটছিল যে!

(৫৬)
সিনেমা হলে দর্শকদের মধ্যে স্বামী-স্ত্রী এত কথা বলছিলেন যে, এক দর্শক বিরক্ত হয়ে বললেন ভাই সাহেব, আমি তো কিছুই শুনতে পাচ্ছি না ?
ভদ্রলোকের উত্তর :- স্বামী-স্ত্রীর কথা আপনি শুনবেন কেন?

(৫৭)
১ম বন্ধু :- বল তো তোর আর গাধার মধ্যে পার্থক্য কতটুকু?
২য় বন্ধু :- কেন, তোম আর আমার যেটুকু।

(৫৮)
অশিক্ষিত মা ও বিলেত ফেরত ছেলে :
মা :- অনেকদিন পর দেশে এলি। মুরগির কলিজাটা খা।
ছেলে :- Thank you.
মা :- ঠ্যাং (পা) খাবি বাবা দিচ্ছি, এই নে।
ছেলে:- Thank you.
মা :- বাকিটাও খাবি বাবা, নে খা।
ছেলে :- Thank you gv.
মা :- আরে বাপ, এক মুরগির কয়াট ঠ্যাং থাকে?

(৫৯)
বাগানের মালিক :- আর যদি কোন দিন তোমাকে আম চুরি করতে দেখি তবে তোমার বাবা কে বলে দিবো।
আম চোর :- আপনি ই”চ্ছা করলে এখনই বলতে পারেন, বাবা তো ঐ গাছের পতার আড়ালে লুকিয়ে আছেন।

(৬০)
স্ত্রী :- হ্যাঁ গো, আমি মরে গেলে তুমি রোজ কবরখানায় যাবে তো?
স্বামী :- আমি তো এখন থেকেই যাই। শাম্মি তো ওখানেই আমার জন্য অপেক্ষা করে।

-সংগৃহীত (Collected)

Bangla Jocks 4: বাংলা জেকস চার (কৌতুক)

Bangla Jocks 5: বাংলা জেকস পাঁচ (কৌতুক)

0 replies

Leave a Reply

Want to join the discussion?
Feel free to contribute!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *